ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড স্কিম | West Bengal Student Credit Card Scheme in Bengali – WBSCCS

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড স্কিম (West Bengal Student Credit Card Scheme – WBSCCS) হল পশ্চিমবঙ্গের অন্তর্ভুক্ত ছাত্রছাত্রীদের পশ্চিমবঙ্গ সহ ভারতের যেকোনো রাজ্যে বা বিদেশে পড়াশোনা করার জন্য সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত নামমাত্র সুদে ঋণ দেওয়ার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের একটি  প্রকল্প।

Table of Contents

WB স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রদানকারী ব্যাঙ্ক 

West Bengal State Co-operative Bank  এবং West Bengal State Co-operative Bank দ্বারা অনুমোদিত Central Co-operative Bank / District Central Co-operative Bank অথবা Public / Privet Sector Bank ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড স্কিম এর  বাস্তবায়নের দায়িত্বে আছে।

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর সুবিধা

  • সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ক্রেডিট করা হবে।
  • নামমাত্র সুদ, বার্ষিক সুদের হার ৪%।
  • পড়াশোনা চলাকালীন সম্পুর্ণ সুদ দিয়ে থাকলে সুদের হারে ১% ছাড় (Rebate) থাকে।

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার যোগ্যতা

  • ছাত্রছাত্রীকে ভারতীয় হতে হবে। ছাত্রছাত্রীকে অথবা তার পরিবারকে (পিতামাতা বা লিগাল গার্ডিয়ান) শেষ ১০ বছর (আবেদনের তারিখ থেকে) পশ্চিমবঙ্গে বসবাস করতে হবে। ছাত্রছাত্রীকে একটি স্ব-ঘোষণাপত্র (Annexure-I) আবেদনপত্রের সঙ্গে দিতে হবে।
  • ছাত্রছাত্রীকে পশ্চিমবঙ্গ সহ ভারতের যেকোনো রাজ্যে বা বিদেশে মাধ্যমিক (Secondary) / উচ্চ-মাধ্যমিক (Higher Seceodary) / স্নাতক (Under Graduate) / স্নাতকোত্তর (Post Graduate) / প্রফেশনাল (মেডিসিন, সার্জারি, ইঞ্জিনিয়ারিং, আর্কিটেকচার, আইন, ব্যবসা, অর্থনীতি, অ্যাকাউনট্যান্সী, ফিজিওথেরাপি, সাইকোলজি, টেকনোলজি ইত্যাদি) / ডিপ্লোমা কোর্স / ডক্টরাল বা পোস্ট ডক্টরাল রিসার্চ ইত্যাদিতে ভর্তি হতে হবে অথবা প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা (Competitive Examination) যেমন Engineering / Medical / Law, IAS, IPS, WBCS, SSC, UPSC, PSC ইত্যাদির কোচিং প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে হবে। এই কোর্সগুলি কোনো স্বীকৃত বিদ্যালয় / মাদ্রাসা / কলেজ / ইউনিভার্সিটি / অন্যান্য প্রতিষ্ঠান যেমন – IIT, IIM, IIS, IIEST, ISI, NLU, AIIMS, NIT, XLRI, BITS, SPA, NID, IIFT, ICFAI Business School ইত্যাদি থেকে করতে হবে।
  • আবেদন করার সময় ছাত্রছাত্রীর বয়স ৪০ বছরের কম হতে হবে।  

পশ্চিমবঙ্গের স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড কোন কোন কোর্স বা কোন প্রতিষ্ঠানে পড়লে পাওয়া যায়?

WBSCC পাওয়ার জন্য আবেদন করতে গেলে উপরে উল্লিখিত কোর্সগুলির মধ্যে যেকোনো একটিতে ভর্তি হতে হবে। এছাড়াও ছাত্রছাত্রী যে প্রতিষ্ঠানে যে কোর্সটিতে ভর্তি হয়েছে তা ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড গ্রহণ করে কিনা তা কিভাবে চেক করা যা তা হল –

  • প্রথম ধাপ – WBSCC এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ভিজিট।
  • দ্বিতীয় ধাপ – Student Registration এর উপর ক্লিক করতে হবে।
  • তৃতীয় ধাপ – পেজটিকে একটু স্ক্রল করে Present Course of Study তে এসে Programme Type সিলেক্ট করার পর Programme Name Drop Down থেকে দেখতে হবে আপনার ভর্তি হওয়া কোর্সটি আছে কি নেই।
  • চতুর্থ ধাপ – State of Institution এবং District of Institution সিলেক্ট করার পর Name of Institution Drop Down থেকে দেখতে হবে আপনার ভর্তি হওয়া প্রতিষ্ঠানের নাম আছে কিনা।
SCC WB Application
WB Student Credit Card – Check Eligibility of your Course of Study & Institution

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর টাকা কোন কোন ক্ষেত্রে খরচ করা যবে?

প্রতিষ্ঠানে খরচ (Institutional Expenses)

  • কোর্স ফি – কলেজ / ইউনিভার্সিটি / অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কোর্স ফি যেমন টুইশন ফি, পরীক্ষার ফি, লাইব্রেরী ফি ইত্যাদি।
  • অন্যান্য ফি – কশান মানি, বিল্ডিং ফান্ড, ফেরতযোগ্য জমা দেওয়া টাকা ইত্যাদি। এক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের বিল প্রয়োজন।

প্রতিষ্ঠান বহির্ভুত খরচ (Non-Institutional Expenses)

  • প্রতিষ্ঠানের হোস্টেলে থাকার খরচ।
  • প্রতিষ্ঠানের বাইরে কোনো হোস্টেলে থাকলে তার ভাড়া।
  • বই / কম্পিউটার / ল্যাপটপ / ট্যাবলেট ইত্যাদি কেনার খরচ। কোর্স শেষ করার অন্যান্য খরচ যেমন – স্টাডি টুর, প্রোজেক্টের কাজ, থিসিস

মোট ঋণের সর্বোচ্চ ৩০% প্রতিষ্ঠান বহির্ভুত খরচ (Non-Institutional Expenses) এবং ২০% থাকার জন্য খরচ (Living Expenses) হিসাবে ব্যয় করা যাবে।

আবেদনের সময়

ছাত্রছাত্রীরা কোর্স চলাকালীন যেকোনো সময় ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর জন্য আবেদন করতে হবে।

নিরাপত্তা (Security)

লোন মঞ্জুর করার সময় ব্যাঙ্ক Collateral Security এর জন্য কোনো প্রকার অপ্রয়োজনীয় বাধ্যকতা বা শর্তাবলি রাখবে না।

বীমা (Insurance)

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর ক্ষেত্রে ছাত্রছাত্রীর নামে একটি বীমা থাকবে যার প্রিমিয়াম ঋণের পরিমান থেকে কাটা হবে।

WB স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর মাধ্যমে টাকা দেওয়ার পদ্ধতি

  • প্রতিষ্ঠানের কোর্স ফি বা অন্যান্য ফি এর টাকা সরাসরি প্রতিষ্ঠানের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা হবে।
  • অন্যান্য খরচ যেমন – কম্পিউটার / ল্যাপটপ / বই / হোস্টেলে থাকার খরচ সরাসরি ছাত্রছাত্রীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা হবে।

WB স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর ঋণ পরিশোধ

  • স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর মাধ্যমে নেওয়া ঋণ ১৫ বছরের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে।
  • ছাত্রছাত্রী বা তার পিতামাতা / আইনি অভিভাবক ঋণ নেওয়ার ১৫ বছরের আগে যেকোনো সময় সম্পুর্ণ ঋণ পরিশোধ করতে পারে।
  • পড়াশোনা চলাকালীন সম্পুর্ণ সুদ দিয়ে থাকলে সুদের হারে ১% ছাড় (Rebate) থাকে।
  • ছাত্রছাত্রী বা কো-বরোয়ার যথাসময়ে ঋণ পরিশোধ করতে বাধ্য থাকবে।

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পের বিবরণ

স্কিমের নামওয়েস্ট বেঙ্গল স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড স্কিম (West Bengal Student Credit Card Scheme)
প্রদানকারী কর্তৃপক্ষপশ্চিমবঙ্গ সরকার
সুবিধাভোগীপশ্চিমবঙ্গের ছাত্রছাত্রী
উদ্দেশ্যউচ্চ-শিক্ষার জন্য ঋণ দেওয়া
আরম্ভ হওয়ার তারিখ৩০-০৬-২০২১
ঋণের পরিমানসর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা
পরিশোধের সময়সীমা১৫ বছর
বার্ষিক সুদের হার৪%
অফিসিয়াল ওয়েবসাইটhttps://wbscc.wb.gov.in
অথবা
https://banglaruchchashiksha.wb.gov.in

আবেদন পদ্ধতি

পশ্চিমবঙ্গের স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর জন্য আবেদন অনলাইনে করতে হয়। অনলাইনে আবেদনের জন্য প্রথমে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে। আবেদনটি দুটি ধাপে সম্পন্ন হয়। প্রথমে রেজিস্ট্রেশন তারপর লগইন। সফলভাবে রেজিস্ট্রেশন করার পর রেজিস্ট্রেশনের সময় দেওয়া মোবাইল নম্বরে রেজিস্ট্রেশন ID সহ একটি মেসেজ যাবে। তারপর লগইন অপশানে গিয়ে ঐ রেজিস্ট্রেশন ID এবং রেজিস্ট্রেশনের সময় দেওয়া পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে আবেদনটি সম্পন্ন করতে হবে।

WB Student Credit Card Online Application

পশ্চিমবঙ্গের স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় নথিপত্র

নথির নামফর্মাটসাইজ (KB)
আবেদনকারীর রঙিন পাসপোর্ট ছবিjpeg / jpg২০ - ৫০
সহ-আবেদনকারী বা Co-borrower এর রঙিন পাসপোর্ট ছবিjpeg / jpg২০ - ৫০
আবেদনকারীর স্বাক্ষরjpeg / jpg১০ - ৫০
সহ-আবেদনকারী বা Co-borrower এর স্বাক্ষরjpeg / jpg১০ - ৫০
আবেদনকারীর আধার কার্ডpdf১০০ - ৪০০
আবেদনকারীর ১০ শ্রেণির বোর্ডের রেজিসট্রেশন সার্টিফিকেট (আধার কার্ড না থাকলে)pdf১০০ - ৪০০
Co-borrower এর ঠিকানার প্রমাণপত্র ( আধার কার্ড)pdf১০০ - ৪০০
প্রতিষ্ঠানে ভর্তির রসিদ ও ফি এর রসিদ pdf১০০ - ৪০০
আবেদনকারীর প্যান কার্ড বা প্যান কার্ড না থাকলে নির্দিষ্ট ফর্মাট (পোর্টালে থেকে প্রাপ্ত)pdf১০০ - ৪০০
Co-borrower এর প্যান কার্ড বা প্যান কার্ড না থাকলে নির্দিষ্ট ফর্মাট (পোর্টালে থেকে প্রাপ্ত)pdf১০০ - ৪০০

FAQ

প্রশ্ন – Brainware University কি স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড গ্রহণ করে?

উত্তর – হ্যাঁ।

প্রশ্ন – Maulana Abul Kalam Azad University of Technology অনুমোদিত কলেজগুলি কি পশ্চিমবঙ্গের স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড গ্রহণ করে?

উত্তর – হ্যাঁ।

প্রশ্ন – SCC আবেদনের জন্য পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা প্রমাণ করার জন্য কী নথি দিতে হয়?

উত্তর – ছাত্রছাত্রীর স্ব-ঘোষণাপত্র, যা অনলাইনে আবেদনের সময় আবেদনপত্রের সঙ্গে থাকে।

প্রশ্ন – SCC সর্বোচ্চ কত টাকা পর্যন্ত শিক্ষাঋণ পাওয়া যায়?

উত্তর – ১০ লক্ষ টাকা।

প্রশ্ন – WB স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড আবেদনের ক্ষেত্রে কে Co-borrower হতে পারবে?

উত্তর – আবেদনকারীর পিতামাতা অথবা আইনী অভিভাবক।

প্রশ্ন – WBSCC এর জন্য আবেদন কোন সময় করতে হয়?

উত্তর – পড়াশোনা চলাকালীন যেকোনো সময়ে।

প্রশ্ন – ছাত্রছাত্রীকে প্রতিটি সেমিস্টার বা বার্ষিক পরীক্ষা শেষে কি মার্কশীট আপলোড করতে হবে?

উত্তর – হ্যাঁ।

প্রশ্ন – SCC আবেদনের পর hard copy কি জমা দিতে হবে?

উত্তর – না। তবে তা ভবিষ্যতের জন্য নিজের কাছে রাখতে হবে?

প্রশ্ন – WBSCC আবেদনের জন্য কি প্রতিষ্ঠানের No Objection Certificate প্রয়োজন?

উত্তর – না।

প্রশ্ন – পশ্চিমবঙ্গের স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে শিক্ষাঋণ নিতে গেলে কি যে ব্যাঙ্ক থেকে লোন নিতে চাই সেই ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট থাকতেই হবে?

উত্তর – না, অন্য যেকোনো ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট থাকলেই হবে।

 আরও পড়ুন – পিএম কেয়ার্স ফর চিল্ড্রেন | PM CARES for Children in Bengali

Leave a Reply

Your email address will not be published.